TURNER IT SOLUTION

বুধবার ১৭ জানুয়ারী ২০১৮ || সময়- ৮:০৯ am

Warning: include(usbd/config/connect2.php) [function.include]: failed to open stream: No such file or directory in /home/onn24/public_html/details.php on line 82

Warning: include(usbd/config/connect2.php) [function.include]: failed to open stream: No such file or directory in /home/onn24/public_html/details.php on line 82

Warning: include() [function.include]: Failed opening 'usbd/config/connect2.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/onn24/public_html/details.php on line 82

Warning: mysql_num_rows() expects parameter 1 to be resource, boolean given in /home/onn24/public_html/details.php on line 84

রোজা ও আত্মশুদ্ধি

  • রোজা ও আত্মশুদ্ধি

    রোজা ও আত্মশুদ্ধি

শেখ সুমাইয়া নাজনীন

সময়টা শীতের শুরু। ট্রেনে করে প্রথমবারের মতো শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছে তমা। জানালার পাশে বসেছে সে। পাশে শাহেদ। এ কয়েকদিনেই তাকে খুব আপন করে নিয়েছে তমা। জানালা দিয়ে বাতাস আসছে হুড়মুড় করে। বেশ আরাম লাগছে তমার। কিন্তু বার বার ঝড়ো ঠাণ্ডা বাতাসে শাহেদ একটু বিরক্তই হচ্ছে। সিটে মাথা এলিয়ে দিয়ে গত কয়েকদিনের কথা ভাবতে লাগল তমা। কত কিছুই না হয়ে গেছে এ কয়েক দিনে। তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ছিল তার বিয়েটা। হুট করেই ঘরোয়াভাবে হয়ে গেল বিয়েটা। কথায় বলে না- “মিয়া বিবি রাজী তো ক্যায়া কারেগা কাজী”। ব্যাপারটা তেমন না হলেও অনেকটা যেন তেমনই। চেনা না জানা না, একজন অপরিচিত লোককে সারা জীবনের সঙ্গী করে নিতে হল।

তমা চা খাবে?
শাহেদের ডাকে ভাবনার জগত থেকে বাস্তবে ফিরে এলো তমা। 
“না। এখন চা খেতে ইচ্ছে করছে না। তুমি যাও। খেয়ে এসো। আমি বসি”। - বলল তমা।
শাহেদ উঠে গেল।
এবার প্রথমবারের মতো শশুবাড়ীতে ঈদ করতে যাচ্ছে তমা। রোজার ঈদ। বিয়ের পর এটাই তার প্রথম ঈদ। আব্বু-আম্মুর জন্য খারাপ লাগছে খুব। গতবারের মতো আর এবার সবার সাথে ঈদ করতে পারবে না ভেবে একটু খারাপই লাগছে তার। আস্তে করে একটা দীর্ঘশ্বাস ছাড়ল সে।
তমা ওঠ। এই তমা!
তন্দ্রা মত এসেছিল তমার। শাহেদের ডাকে ধড়মড়িয়ে উঠল সে।
ইশ, ঘুমিয়ে পড়েছিলাম না?
“হুম। চল, নামতে হবে আমাদের”।
“পৌঁছে গেছি! চল”।

বিসমিল্লাহ্ বলে সামনের দিকে ডান পা বাড়ালো তমা। মনের কোণে জমে আছে ভয়। কি না কি হয়!
সাথে লাগেজ বলতে দুটো ট্রলি। একটাতে তার আর শাহেদের কাপড়। আরেকটাতে সবার জন্য কেনা কিছু কাপড়-চোপড়। একটা রিকশা ডাকল শাহেদ।
“রিকশায় যেতে কতক্ষন লাগবে কে জানে”। - বিড়বিড় করে আওড়াল তমা।
গ্রামের কাঁচা রাস্তা ধরে এগোচ্ছে তারা। শীতের শুরু হলেও এখনি কেমন ঘন কুয়াশা। রাস্তায় মানুষজন তেমন নেই। মনে হচ্ছে যেন শীতে কাবু হয়ে গেছে সবাই। ঠাণ্ডা বাতাসে শরীর কেপে উঠল তমার। পথ যেনো আর ফুরোয় না। শেষ পর্যন্ত যেতে যেতে একটা বাড়ীর সামনে থামল রিকশা। সুন্দর একটা টিনের বাড়ী। পরিস্কার উঠোন। পাশে বিশাল সান বাঁধানো ঘাটের পুকুর। বাড়ীর সামনে দরজার দু'পাশে লাগানো ফুল গাছ। চোখ জুড়িয়ে গেল তমার।
উঠানেই কাজ করছিলেন শাহেদের মা। শাহেদ আর বৌমাকে দেখে হাতের কাজ ফেলে ছুটে এলেন কাছে। জড়িয়ে ধরলেন ছেলে আর ছেলের বৌকে। সাথে সবাইকে ডেকে ডেকে বাড়ী মাথায় তুললেন যেন। সবার ভালোবাসায় মনটা প্রশান্তিতে ছেয়ে গেলো তমার।

দুপুরে খাবারের বিরাট আয়োজন করলেন শাহেদের মা। বাহারি খাবারের পশরায় সাজল খাবার ঘরের গোটা টেবিল। কতদিন পর ছেলে এসেছে। বিয়ের পর বউমা প্রথম এলো শ্বশুরবাড়িতে ঈদ করতে। তাই আয়োজনের কোন কমতি রাখেন নি রাহেলা। নিজের সাধ্যমত চেষ্টা করেছেন। আর বউটা সারা দুপুর তাকে এ কাজে ও কাজে সাহায্য করেছে। আসলেই মেয়েটা অনেক ভালো। "আমার ছেলেকে অনেক সুখে রাখবে"- মনে মনে ভাবলেন রাহেলা।


সবাই একসাথে খেতে বসল। খাবার টেবিলে তমার শ্বশুর বললেন - "আজ মনে হচ্ছে অনেকদিন পর বাড়িটা আবার প্রান ফিরে পেল।"
অনেক মানুষ নতুন বউ দেখতে এলো। শাহেদের আত্মীয়রা ছাড়াও গ্রামের আশে-পাশের মানুষজন এসে তমাকে দেখে গেল। রাতে ঘুমোতে ঘুমোতে প্রায় ১২টা বেজে গেল। সারাদিনের দৌড়-ঝাঁপ আর পরিশ্রমে তমার ক্লান্ত চোখ দুটো বুজে এলো। রাত সাড়ে তিনটার দিকে হঠাৎ ঘুম ভেঙে গেল তার। শাহেদের দিকে তাকিয়ে দেখল অঘরে ঘুমোচ্ছে সে। এদিকে সেহেরি খাওয়ার সময় হয়ে গেছে। মসজিদের মাইকে সবাইকে সেহেরি খাওয়ার আবেদন জানানো হচ্ছে বার বার। তড়িঘড়ি করে বিছানা ছাড়ল তমা। শাহেদকে ডাকল। শাহেদ একটু মোড়ামুড়ি করে আবার ঘুমিয়ে পড়ল। তমা তাড়াতাড়ি রান্নাঘরে চলে এলো। রান্নাঘরটা বেশ বড়। রান্নাঘরের এক কোনায় জানালার পাশে ছোট একটা খাবার টেবিল। পরিপাটি করে সাজানো। তমা দেখল কেউ নেই রান্নাঘরে। বোধহয় কেউ ওঠেনি এখনো। সারাদিন অনেক ধকল গেছে সবার ওপর দিয়ে। অনেক ভয়ে ভয়ে ছিল তমা। বাসায় রোজা রাখত ও। কিন্তু সব রাখা হয়ে উঠত না। গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা। তারপরও কষ্ট করে রাখতো। কিন্তু শাহেদের পরিবারে এটা তার প্রথম রমজান। তাই সে একটু ভয়ে ভয়ে আছে। সে তাড়াতাড়ি সব গরম করে ফেলল। ভাত রান্না করল। কিন্তু ব্যাপার কি? কেউ উঠছে না কেন?

রাহেলার রাতে সহজে ঘুম হয় না। ঘুম একবার ভাঙলে সারা রাতে আর ঘুম আসে না। রান্নাঘর থেকে অনেক্ষন ধরে আওয়াজ কানে আসছে তার। শোয়া থেকে উঠে বসল সে। রান্নাঘরে গিয়ে দরজা দিয়ে উঁকি দিল সে। দেখে নতুন বউটা টুকটুক করে কাজ করছে। খাবার গরম করছে। হঠাৎ তার মনে পড়ল রোজার কথা। মনে মনে লজ্জা পেলেন তিনি। তিনি রোজা রাখেন না। রাখলেও একটা দুটোর বেশী না। ক্ষুধা তার একদম সহ্য হয় না। আর লো প্রেসারও আছে তার। ঘরের বাকিরাও রোজা রাখে না। যে যার মতো ব্যস্ত থাকে এটা সেটা নিয়ে। কিন্তু এবার! শুনেছিলেন মেয়েটা অনেক পরহেজগার।

নতুন বউ জানতে পারলে কি মনে করবে এই ভেবে তিনি চুপি চুপি সবাইকে ডেকে তুললেন। বড়দের উঠতে দেখে ছোটরাও ঘুম থেকে উঠে গেল। সবাই বিষয়টা বুঝতে পেরে হাত মুখ ধুয়ে টেবিলে চলে এলো। খাওয়া-দাওয়া হল। রাহেলা তমার মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করে দিলেন। সবাই-ই মনে মনে অনেক খুশি। অনেকদিন পর এমন একটা মহল তৈরি হল।

খাওয়া-দাওয়া শেষ করতে করতে আজান দিয়ে দিল। সবাই যার যার মতো নামাজ পড়ে ঘুমোতে গেল। সবার মনেই একটা প্রশান্তির ভাব। রাহেলা মনে মনে ভাবলেন আসলেই তিনি অনেক ভাগ্যবতী। একটা পরহেজগারি মেয়ের বদৌলতে আজ তারা রোজা রাখার নিয়ত করলেন এবং রোজা রাখলেন। হোকনা তা লজ্জায়। মনে মনে নিয়ত করলেন কখনও আর রোজা কাজা করবেন না। খুশি মনে শুতে গেলেন তিনি।

তমা ঘরের উঠোনে বসে আছে। ভোর হয়ে গেছে। সবাই ঘুমোচ্ছে। তার ঘুম আসছে না। কোথায় যেন একটা পাখি ডাকছে। খুব মিষ্টি সুর। চারদিক কি শান্ত! নিজেকে ওই পাখিটার মতো মনে হচ্ছে তমার। খুব হালকা লাগছে নিজেকে। অনেকদিন পর খাস নিয়তে রোজা রেখে অনেক শান্তি লাগছে তার। হঠাৎ সূরা বাকারার একটা আয়াত মনে পড়ল তার। " হে ঈমানদারগণ, তোমাদের প্রতি রোজা ফরজ করা হয়েছে। যেমন তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর ফরজ করা হয়েছিল। সম্ভবত তোমরা পরহেজগার হবে।"
সত্যিই। রমজান আসলেই শান্তি আর সংযমের বার্তা নিয়ে আসে।

ONN TV
payoneer
নিউজ আর্কাইভ
সর্বাধিক পঠিত
সখিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২ ব্যাপী ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান
ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: সখিপুর ইউনিয়নের সখিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২ দিনব্যাপী ক্রীড়া, কুইজ, রচনা প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বে-সরকারি প্রতিষ্ঠা

জেলা পরিষদের সদস্য প্রাথী শাপলার গনসংযোগ
জেলা পরিষদের সদস্য প্রাথী শাপলার গনসংযোগ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউপি চেয়ারম্যানদের সাথে গনসংযোগ করেছেন জেলা পরিষদের সদস্য প্রার্থী সোনিয়া পারভীন শাপলা। সোমবার

দেবহাটা রিপোর্টাস ক্লাবের নবগত নির্বাহী অফিসারের সাথে ফুলের শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়
 শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটা উপজেলা নবগত নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন দেবহাটা রিপোর্টাস ক্লাবের নের্তৃবৃন্দরা। সোমবার দুপুরে নির

দেবহাটায় ছাত্রলীগের ৪দলীয় ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট
৪দলীয় ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট

মীর খায়রুল আলম, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: দেবহাটায় ছাত্রলীগের উদ্যেগে ৪দলীয় ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকালে উপজেলার গোপাখালি মাঠে দে

দেবহাটায় ইএনও’র বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন
দেবহাটায় ইএনও’র বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন

মীর খায়রুল আলম:: দেবহাটা উপজেলাকে মডেল করতে ছুটির দিনে উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজ আল-আসাদ। শুক্রবা

শিরোনাম